বুধবার, ০৫ মে ২০২১, ১২:০৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
রাজধানীতে ছিন্নমূল মানুষের দারপ্রান্তে বিডি সমাচার ফাউন্ডেশন সুন্দরগঞ্জে ছাত্রলীগ নেতা রতনের নিজ অর্থায়নে বিভিন্ন মাদ্রাসায় কুরআন শরীফ বিতরণ ভূমিদস্যু তাহেরের সন্ত্রাসী হামলায় চমেক হাসপাতালের বেডে কাতরাচ্ছে এক অসহায়। রতন সরকারকে অবাঞ্ছিত করার এখতিয়ার রংপুর প্রেসক্লাবের নেই: বিএমএসএফ উল্লাপাড়ায় অনশনরত প্রেমিকার বিয়ে না হলে আত্মহত্যার হুমকি! জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্ম শত বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ১৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী যুব লীগ এর প্রস্তুতিমুলক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্ম শত বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে ১৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামী যুব লীগ এর প্রস্তুতিমুলক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত। নড়াইলের জেলা তুলারামপুর সেতুতে ধস, বড় যান চলাচল বন্ধ আশার আলো মহা বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ রহশন আলমের শ্বরন সভা ও দোয়া অনুষ্ঠান। মাদ্রাসা ছাত্রকে হাত বেঁধে ঝুলিয়ে নির্যাতন, শিক্ষক গ্রেপ্তার।

ফজর নামাজের ফজিলত গুলো জেনে নিন!

দৈনিক আলোর দিগন্ত
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১২১ বার দেখা হয়েছে

সুবহে সাদিক থেকে সূর্যোদয়ের আগ পর্যন্ত ফজরের নামাজের সময়। ফজরের দুই রাকাত সুন্নত নামাজের পর ফরজ নামাজ পড়তে হয়।

ফজরের নামাজ মূলত দুই রাকাত সুন্নত ও দুই রাকাত ফরজ নামাজ নিয়ে গঠিত। ফরজ অংশ ইমামের নেতৃত্বে জামাতের সঙ্গে আদায় করা হয়।

উল্লেখ্য, ফজরের সময় শুরু হওয়া থেকে ইসলামের অন্যতম একটি স্তম্ভ রোজার সময়ও শুরু হয়।

ফজরের নামাজ আদায়ে বিশেষ ৮টি উপকারী দিক পাঠকের জন্য নিচে তুলে ধরা হলো-

হাদিস শরিফে এসেছে-

(১) ফজরের নামাজে দাঁড়ানো, সারা রাত দাঁড়িয়ে নামাজ পড়ার সমান। ‘যে ব্যক্তি জামাতের সাথে এশার নামাজ আদায় করলো, সে যেন অর্ধেক রাত জেগে নামাজ পড়লো। আর যে ব্যক্তি ফজরের নামাজ জামাতের সাথে পড়লো, সে যেন পুরো রাত জেগে নামাজ পড়লো।’ (মুসলিম শরিফ)

(২) ‘যে ব্যক্তি ফজরের নামাজ পড়বে, সে আল্লাহর জিম্মায় থাকবে।’ (মুসলিম)

(৩) ফজরের নামায কেয়ামতের দিন নূর হয়ে দেখা দিবে-

‘যারা রাতের আঁধারে মসজিদের দিকে হেঁটে যায়, তাদেরকে কেয়ামতের দিন পরিপূর্ণ নূর প্রাপ্তির সুসংবাদ দাও।’ (আবু দাউদ)

(৪) সরাসরি জান্নাত প্রাপ্তি-

‘যে ব্যক্তি দুই শীতল (নামাজ) পড়বে, জান্নাতে প্রবেশ করবে। আর দুই শীতল (নামাজ) হলো ফজর ও আসর।’ (বুখারী)

(৫) রিজিকে বরকত আসবে-

আল্লামা ইবনুল কাইয়িম (রহ.) বলেছেন, সকালবেলার ঘুম ঘরে রিজিক আসতে বাঁধা দেয়। কেননা তখন রিজিক বন্টন করা হয়।

(৬) ফজরের নামাজ পড়লে, দুনিয়া আখেরাতের সেরা বস্তু অর্জিত হয়ে যাবে-

‘ফজরের দুই রাকাত নামাজ দুনিয়া ও তার মধ্যে যা কিছু আছে, সবকিছুর চেয়ে শ্রেষ্ঠ।’ (তিরিমিযি)

(৭) সরাসরি মহান রাব্বুল আলামীন আল্লাহর দরবারে নিজের নাম আলোচিত হবে-

‘তোমাদের কাছে পালাক্রমে দিনে ও রাতে ফেরেশতারা আসে। তারা আসর ও ফজরের সময় একত্রিত হয়। যারা রাতের কর্তব্যে ছিল তারা ওপরে উঠে যায়। আল্লাহ তো সব জানেন, তবুও ফিরিশতাদেরকে প্রশ্ন করেন, আমার বান্দাদেরকে কেমন রেখে এলে? ফেরেশতারা বলে, আমরা তাদেরকে নামাজরত রেখে এসেছি। যখন গিয়েছিলাম, তখনো তারা নামাজরত ছিল।’ (বুখারি)

(৮) ফজরের নামাজ দিয়ে দিনটা শুরু করলে, পুরো দিনের কার্যক্রমের একটা বরকতম সূচনা হবে।
প্রিয়নবী (সা.) বলেছেন-

‘হে আল্লাহ! আমার উম্মতের জন্যে, তার সকাল বেলায় বরকত দান করুন।’ (তিরমিযী)

আপনার মন্তব্য লিখুন

সংবাদটি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2020 Alor Diganto
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102